‌‍’টিকটক’ ফেসবুকের জন্য হুমকি !

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সম্প্রতি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্সর টাওয়ার ফেসবুকের জন্য টিকটককে হুমকি বলেছে। প্রতিষ্ঠানটি সাম্প্রতিক অ্যাপ ডাউনলোড নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চীনা প্রতিষ্ঠান বাইটড্যান্সের তৈরি টিকটক অ্যাপটি গত বছরের সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হওয়া অ্যাপের তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। বিশ্লেষকরা বলছেন, ফেসবুকের রাজত্বে হানা দিতে টিকটক উঠে এসেছে।

বিগত বছরগুলোতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ডাউনলোডের তালিকার শীর্ষে ছিল ফেসবুক মালিকানাধীন বিভিন্ন অ্যাপ। ২০১৬ ও ২০১৭ সালেও ফেসবুক মালিকানাধীন অ্যাপই সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হওয়া অ্যাপের শীর্ষ চারে ছিল। কিন্তু গত বছরে হোয়াটসঅ্যাপকে ছাড়িয়েছে টিকটক। এ কারণেই টিকটককে ফেসবুকের জন্য হুমকি মনে করা হচ্ছে।

দুইটি প্রতিষ্ঠানই বিজ্ঞাপনের অর্থে চালিত প্রতিষ্ঠান। বিজ্ঞাপন জোগাড় করতে উভয়ের মধ্যেই প্রতিযোগিতা চলছে যা এখন তীব্র আকার ধারণ করেছে। টিকটকের ব্যবহারকারী বাড়তে থাকায় ফেসবুকের বিজ্ঞাপনদাতারা টিকটকের প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছেন। এছাড়াও ফেসবুকের কর্মীদের নানা অফার দিয়ে ভাগিয়ে নিচ্ছে টিকটক। এদের মধ্যে বিজ্ঞাপন বিভাগের অভিজ্ঞ কর্মীরাই বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে।

সব ধরনের সামাজিক যোগাযোগের অ্যাপ মিলিয়ে ফেসবুক প্রায় ৬০০ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছায়। এতে প্রতিষ্ঠানটি প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় বিজ্ঞাপন থেকে বেশি আয় করতে পারে। গত বছরের ৩য় প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটি বিজ্ঞাপন থেকে ১৭ দশমিক ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করে। এ তুলনায় টুইটার আয় করেছে মাত্র ৭০ কোটি ২০ লাখ ডলার। পিন্টারেস্ট ও স্ন্যাপ তাদের বিজ্ঞাপনের আয় ঘোষণা করেনি। তবে প্রতিষ্ঠান দুটি ২৮ কোটি এবং ৪৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার রাজস্ব দেখিয়েছে।

টুইটার, পিন্টারেস্ট ও স্ন্যাপের ব্যবহারকারীর সংখ্যা ফেসবুকের তুলনায় কম। গত বছরের ৩য় প্রান্তিকে টুইটারে মাত্র সাড়ে ১৪ কোটি দৈনিক ব্যবহারকারী ছিল। এর আগে প্রতি মাসে ৩৩ কোটি ব্যবহারকারীর কথা বলেছিল টুইটার। এ দিকে পিন্টারেস্ট ২৮ কোটি ও স্ন্যাপ ২১ কোটি দৈনিক ব্যবহারকারীর কথা বলেছিল।

অন্যদিকে, ২৪০ কোটি ফেসবুকের মূল নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীর মধ্যে ১৬০ কোটি মানুষ দৈনিক ফেসবুক ব্যবহার করছে। এর বাইরে দৈনিক ১৫০ কোটি হোয়াটসঅ্যাপ ও ১০০ কোটি ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করছে। এছাড়া দৈনিক ৫০ কোটি ব্যবহারকারী ফেসবুকের ফটো শেয়ারিং সেবা ব্যবহার করছে।

গত বছরে ফেসবুকের আয়ের ৯৯ শতাংশই ছিল বিজ্ঞাপন থেকে। এখন যদি বিজ্ঞাপনের বাজারের ফেসবুক হেরে যায় তবে ফেসবুকের মারাত্মক দুর্দশা হবে। তাই টিকটককে ঠেকাতে ফেসবুক নানা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। কিন্তু এসব পরিকল্পনা ঠিকভাবে কাজ করবে কি না তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। (দৈনিক অধিকার)

হৃদয়/এমবিটি

Tagged

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.