চুয়াডাঙ্গা জেলায় গলায় দড়ি দিয়ে গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে

0
2

মোঃ রবিউল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা থেকে:

চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গার উপজেলার মুন্সিগঞ্জের নতিডাঙ্গা গ্রামে গলায় দড়ি দিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা করেছে।

(১০-এপ্রিল) রোজ শুক্রবার সকাল দশটার দিকে সে পরিবারের সবার অজান্তে ফ্যানের সাথে ওড়না আর দড়ি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট করেন।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জের নতিডাঙ্গা গ্রামের দক্ষিণ পাড়ার সমীর আলীর মেয়ে সুমাইয়া আক্তার দীপ্তি (২১) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

পারিবারিক সূত্রে জানায়, গত ৩ বছর আগে ভোগাইল বগাদি আমির আলীর ছেলে
মূর্শিদুলের সাথে পারিবারিকভাবে বিবাহ সম্পন্ন হয়। সে মালয়েশিয়া প্রবাসী। গত মঙ্গলবার নতিডাঙ্গা গ্রামের উত্তর পাড়ার ঈশা মণ্ডলের ছেলে সবুজ আলী (২০)
সুমাইয়া আক্তার দীপ্তি সঙ্গে বিবাহ করেছে বলে একটি কাবিননামা তার শ্বশুর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। কাবিননামা পেয়ে সুমাইয়া আক্তার দীপ্তির শ্বশুর আমির আলী পিতা সমীরকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে মেয়েকে তার হাতে তুলে দেন। বৃহস্পতিবার ১০ টার দিকে অভিমানে সে আত্মহত্যা করে বলে জানায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সুমাইয়া আক্তার দীপ্তির কথিত স্বামী সবুজ জানান আমি তার সঙ্গে বিবাহ করেছি আইনত সে আমার স্ত্রী। কেন এবং কি কারণে সে আত্মহত্যা করেছে এ বিষয়ে আমি অবগত নই।

এ ব্যাপারে বারাদি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদ পারভেজ বলেন আমি সুমাইয়া আক্তার দীপ্তির বর্তমান স্বামী সবুজের সঙ্গে কথা বলেছি সে দীপ্তির সঙ্গে বিবাহ করেছে বলে স্বীকার করেছে।

এ ব্যাপারে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের ইনেসপেক্টর অপারেশন স্বপন কুমার সঙ্গীয় ফোর্সসহ লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট করেন। এবং ময়না তদন্ত ছাড়া লাশ দাফনের অনুমতি দেন।

হৃদয়/এমবিটি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.