খুলনার দাকোপের বাজুয়ায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বাজার-ও সাপ্তিক হাট মঙ্গলবার লকডাউন।

কোরোনা ভাইরাস দেশজুড়ে

খুলনার দাকোপের বাজুয়ায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বাজার-ও সাপ্তিক হাট মঙ্গলবার লকডাউন।


স্বপন কুমার রায় খুলনা ব্যুরো প্রধান:
খুলনার দাকোপের বাজুয়ায় সাপ্তাহিক হাট মঙ্গলবার দেশে চলমান করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় দাকোপ উপজেলা প্রশাষনের কঠোর অবস্থানে থাকতে দেখা গেছে। হাটটিতে হাজার হাজার ক্রেতা বিক্রেতার সমাগম ঘটে।থানা পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসন হাট- বাজার লকডাইন করে দিয়েছে।বাজুয়াতে সাপ্তাহিক হাট বসে প্রতি মঙ্গল বার আজ ৭ এপ্রিল মঙ্গলবার সব রকম দোোকান পাট বন্দ রয়েছে হাটুরে ট্রলার গুলোকে ঢুকেতে দেওয়া হয়নি বাজারে ফলে আজ প্রথম দিন এলাকাতে সফল লকডাউন হয়েছে বলে সরোজমিনে জানা গেছে।। দাকোপ উপজেলা প্রশাষন হাটবাজার বন্ধের জন্য প্রশাসনিক ভাবে ইজারাদারদের হাট বন্ধ করতে নোটিশ দেয়া হয়। এছাড়াও এলাকাজুড়ে হাটবাজার বন্ধ রাখতে মাইকিং করা হয়। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে হাটবাজার না বসান সেজন্য ভোর রাত থেকে অভিযান চালান উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃআবদুল ওয়াদুদ ও থানাপুলিশের অফিসারইনচার্জ সফিকুল ইসলাম চৌধুরী। এদিকে দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেঃআবদুল ওয়াদু’দের নির্দশনা বাস্তবায়ন করতে লাউডোব ইনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সরোজিত কুমার রায় স্হানীয় ভাবে গ্রাম পুলিশ দিয়ে সার্বক্ষনিক তদারকি করেছেন।এসময় শুধুমাত্র ফার্মেসির দোকোন ছাড়া সকল প্রকার দোকান বন্ধ করে দেয়া হয়।দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃআবদুল ওয়াদুদ বলেন আসুন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আতঙ্কিত না হই। নিজে সচেতন হই, পরিবার-পরিজন ও আশেপাশের সকলকে সচেতন করি। সংক্রমণ থেকে রক্ষাপেতে নিয়মিত সাবান বা হান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত ধুয়ে জীবাণু মুক্ত থাকি। প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাহিরে না বাহির হই, করোনার বিস্তার রোধে মেনে চলুন হোম কোয়ারেন্টাইন প্রক্রিয়া। নিজেকে অন্য সবার কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন রাখুন, দায়িত্বশীল আচরণ করুন। যাবতীয় কাজ ঘরে বসেই সেরে নিন। আপনার দায়িত্বশীল আচরণই পারে অসংখ্যা জীবনকে করোনা ঝুঁকি মুক্ত রাখতে। করোনা ভাইরাস রোধে হাট বাজার গুলো লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।
দাকোপ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ সফিকুল ইসলাম চৌধুরী জানান, জন সমাগম এড়াতে প্রতিটি হাটে পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

Tagged

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.